অনেকের ঘরেই আজকাল তুলসি গাছ চোখে পড়ে থাকে হিন্দু ধর্মের মানুষের কাছে তুলসি গাছের অর্থ ধর্মীয় দিক দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তো বটেই, সাধারণ অর্থেও আর দশটা গাছের তুলনায় তুলসি গাছের গুনাগুন বেশ ভিন্ন।

 

কারণ তুলসি পাতার রয়েছে ঔষধি গুণাগুণ, রোগ নিরাময়ের ক্ষমতা। ছোটোখাটো অনেক রোগের বেশ ভালো ঔষধ হিসেবে ব্যবহার করা হয় এই তুলসি পাতা। আজকে দেখে নেয়া যাক এমনই ৫ টি রোগের ঔষধ হিসেবে তুলসি পাতার ব্যবহার।

 

 

জ্বরঃ

তুলসীপাতা সবথেকে বেশি যে অসুখের হাত থেকে আপনাকে রক্ষা করবে তা হল জ্বর। চায়ে তুলসীপাতা সেদ্ধ করে সেই পাণীয় যদি পান করেন, তবে ম্যালেরিয়া, ডেঙ্গু প্রভৃতি অসুখ থেকে রক্ষা পেতে পারেন। আপনার পরিবারের কারো জ্বর হলে তাকে তুলসীপাতা এবং দারুচিনি মেশানো ঠান্ডা চা পান করান। জ্বর সেরে যাবে দ্রুত।

 

 

গলার ব্যাথাঃ

সামান্য গরম পানিতে তুলসীপাতা দিয়ে সেদ্ধ করে নিয়ে, সেই পানি দিয়ে গার্গল করলে বা পানি পান করলে আপনার গলার ব্যাথা দ্রুত সেরে যাবে।

 

 

সর্দি ও কাশিঃ

সর্দি-কাসি প্রায় প্রত্যেকটি মৌসুমের খুব সাধারণ একটি অসুখ যা সবাইকে সমস্যা দেয়। এই সমস্যার হাত থেকে মুক্তি পেতে গেলে তুলসীপাতা ৫ মিনিট চিবিয়ে রসটি গিলে নিন। তাহলে এই সমস্যার হাত থেকে সহজেই সমাধান পেয়ে যাবেন।

 

 

ত্বকের সমস্যাঃ

ত্বকে ব্রণের সমস্যা সমাধানের একটি সহজ ও অন্যতম উপায় হল তুলসীপাতা। এছাড়াও নানান রকম অ্যালার্জি ও র‍্যাশে কার্যকর। তুলসীপাতার পেস্ট তৈরি করে তা ত্বকে লাগালে এই সমস্যাগুলি কমে যায়

 

 

কিডনির সমস্যাঃ

তুলসীপাতা আপনার কিডনীর বেশ কিছু রোগের সমাধান করে দিতে পারে। তুলসীপাতার রস প্রতিদিন একগ্লাস করে পান করলে, কিডনীতে স্টোন হওয়ার সম্ভাবনা খুব কম থাকে। যদি কিডনীতে স্টোন জমে যায় তবে তুলসীপাতার রস টানা ৬ মাস পান করলে সেই স্টোন মূত্রের সঙ্গে বেরিয়ে যায়।

জেনে নিন কিডনি নষ্টের কিছু কারণ!