[X]
Home / ফিটনেস / সুস্বাস্থ্যের জন্য আজই এই ৬টি সামগ্রী ব্যবহার বন্ধ করুন!

সুস্বাস্থ্যের জন্য আজই এই ৬টি সামগ্রী ব্যবহার বন্ধ করুন!

স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল। এই স্বাস্থ্য রক্ষার্থে আমরা কত কিছুই না করে থাকি। স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া, নিয়মিত ঘর পরিষ্কার করা আরও কত কী! কিন্তু প্রতিদিন আমরা এমন কিছু সামগ্রী ব্যবহার করে থাকি যা আমাদের শরীরের ক্ষতি করে থাকে আমাদের অজান্তেই। আমরা সবাই জানি কিছু রাসায়নিক উপাদান স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী, আবার কিছু উপাদান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এমনকি প্রতিদিন আমরা যে সকল ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহার করি সেগুলো নিরাপদ নয়। এমনই কিছু প্রাত্যহিক ব্যবহার্য সামগ্রীর সাথে আজ আপনাদের পরিচয় করিয়ে দেওয়া যাক।

 

 

১। প্লাস্টিকের কনটেইনার এবং বোতল  

প্লাস্টিকের বোতল এবং কনটেইনারের রাসায়নিক উপাদানগুলো আপনার মেটাবলিজম, টিস্যুর ফাংশনের উপর প্রভাব ফেলে থাকে। এতে থাকা বিসফেনাল (বিপিএ) নামের বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ থাকে যা খাবারের সাথে মিশে রক্ত ঢুকে যায়।   বাচ্চাদের মানসিক বৃদ্ধি বাঁধাপ্রাপ্ত, থাইরয়েড ক্যান্সার, প্রোস্টেট ক্যান্সার, স্তন ক্যান্সার , হাইপারটেনশন সহ আরও নানা শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়। পুরোতন প্লাস্টিক কনটেইনার ব্যবহার করা আরও বেশি ঝুঁকিপূর্ণ।

 

 

২। আর্টিফিসিয়াল সুইটনার   

আর্টিফিসিয়াল সুইটনার শরীরে চর্বি জমিয়ে দেয়। এমনকি আর্টিফিসিয়াল সুইটনারযুক্ত পানীয় যেমন ডায়েট কোক, ডায়েট সোডা, ওজন বৃদ্ধি করার সাথে সাথে স্ট্রোক, হার্ট অ্যাটাকের কারণ হয়ে থাকে। এতে মাইক্রোফ্লোরা নামক উপাদান রয়েছে যা ওবেসিটি বা স্থুলতা সৃষ্টি করে।

 

 

৩। অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল সাবান এবং ডিটারজেন্ট

২০১৪ সালের FDA এর রিপোর্ট অনুযায়ী অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল সাবান এবং ডিটারজেন্ট প্রতিদিনকার কাপড় পরিষ্কার করতে ব্যবহার করা নিরাপদ নয়। ট্রাইক্লোসন উপাদান যা অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল পরিষ্কারকে ব্যবহৃত হয়ে থাকে এটি স্বাস্থ্যের জন্য বেশ ক্ষতিকর।

 

 

৪। ননস্টিক কুকওয়ার

কম তেলে দ্রুত রান্না হওয়ার কারণে ননস্টিক প্যান বর্তমান সময়ে বেশ জনপ্রিয়। কিন্তু আপনি কি জানেন, এই ননস্টিক প্যানে পারফ্লুওক্টানয়েক অ্যাসিড (পিএফওএ) নামে এক ধরণের বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ আছে। উচ্চতাপে রান্না করলে এই পদার্থ খাবারের সাথে মিশে যায়। এর কারণে ক্যান্সারের মত মরণব্যাধিও হতে পারে। বরং বা সিরামিক বা লোহার পাত্র ব্যবহার করা ভাল।

 

 

৫। ইলেকট্রনিক ডিভাইস

২০১১ সালের WHO এবং IARC গবেষণায় দেখা গেছে মোবাইল ফোনের রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি ক্যান্সারের কারণ হতে পারে। তারবিহীন ফোন ব্রেন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনাকে বৃদ্ধি করে বহুগুণ। মোবাইল ফোনের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে বাঁচতে এটি ব্যবহার করা কমিয়ে দিন।

 

 

৬। আপনার চেয়ার

খুব অবাক হচ্ছেন? নিজ আপনার চেয়ার আপনার স্বাস্থ্যের ক্ষতিকর করছে!  দীর্ঘক্ষণ বসা ক্রনিক রোগ,  হাঁটুর সমস্যা সহ আরও নানা স্বাস্থ্য সমস্যার সৃষ্টি করে থাকে। British Medical Journal গবেষণায় দেখছে দীর্ঘক্ষণ বসে থাকা ফুসফুস ক্যান্সার ৫০% পর্যন্ত বৃদ্ধি করে থাকে।

Check Also

দীর্ঘমেয়াদী ব্যথা দূর করতে সাহায্য করবে যাদুকরী এই পানীয়টি!

দীর্ঘমেয়াদী ব্যথা দূর করতে সাহায্য করবে যাদুকরী এই পানীয়টি!   আপনার কী ঘাড়ে, জয়েন্টে, পায়ে …

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *